শনিবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০

​বড়ন্তীর ইতিকথা ..


শুধু একটা সানসেট দেখতে এতদূর ছুটে আসতে হবে!!বাড়ির লোকজন চটে লাল আমার প্রস্তাব শুনে..!বাবা বাছা করে বোঝাতে শুরু করলাম,,,,উফফফ,নেপালের নাগারকোটে কি দেখোনি দুর্দান্ত একটা সানসেট?অথবা কৌশানির অনাসক্তি আশ্রম প্রাঙ্গন থেকে দেখা সূর্যাস্ত্যের শেষ আলোয় আলোকিত ত্রিশূল পর্বত?? বড়ন্তীও কিছু কম যায় না!!আরে একবার গিয়ে দেখোই না!সাথে এই সময় উপরি পাওনা থোকা থোকা পলাশ ফুল!!এছাড়াও আছে আরও একগাদা সাইট সিইং এর অপশন।জয়চন্ডী পাহাড়,বেরো হিল,গড়পঞ্চকোট,মাইথন...।চলোই না..

তা এত বুঝিয়ে সুঝিয়ে রাজি করিয়ে শেষমেশ চলেই এলাম বড়ন্তী!হাওড়া থেকে পূর্বা এক্সপ্রেস ধরে আসানসোল,,,তারপর গাড়িতে ঘন্টা দেড়েকের পথ পেরিয়ে বড়ন্তী গ্রাম।ঠাঁই হল বড়ন্তী নেচার ইকো রিসর্টে।সুন্দর খেলার জায়গা বাচ্চাদের জন্য সাথে খাঁচা বন্দী এক গাদা পাখী আর খরগোস।আমার ছেলের খুব পছন্দ হল ঢুকেই বাঁ হাতি খাঁচা বন্দী দুই এমু পাখীকে।

দ্বিপ্রাহরিক আহার পর্ব সেরে অল্প বিশ্রাম নেওয়ার ইচ্ছে হল সবার।আমার মন টানছে বাইরে।বেরিয়ে ডান দিকে অল্প পা চালিয়ে এগোলেই বড়ন্তী লেক।চারিদিকে পলাশের ছড়াছড়ি।ক্যামেরা হাতে করে বেরিয়ে পড়তেই হল।কাঁহাতক অলস ভাবে বসে থাকা যায়!!

আস্তে আস্তে বেলা গড়িয়ে এল।প্রায় বিকেল পাঁচটা বাজে।বাকিরা এতক্ষণে গা ঝাড়া দিয়ে আলসেমি কাটিয়ে বেরিয়ে এল।"সূর্য্য ডোবার পালা,আসে যদি আসুক..বেশ তো!"সানসেট দেখতে হবে যে!বড়ন্তীর বিখ্যাত সূর্যাস্ত্য!!

বেশ অনেক জায়গায় সানসেট দর্শনের সৌভাগ্য হয়েছে।সে ইঙ্গিত আগেই দিয়েছি।কিন্তু পুরুলিয়ার বড়ন্তী লেকে যে সানসেট দেখলাম তা অনেকদিন মনে থাকবে।

ধীরে ধীরে দিনমণি অদৃশ্য হয়ে গেলেন লেকের জলে।আকাশে কিন্তু তার রেশ রয়ে গেল বহুক্ষণ!সেই রাঙা আলোয় তখনও আধো অন্ধকারে লেকের জলে মাছ ধরতে ব্যাস্ত কয়েক জন ধীবর ভাই।ছোট ছোট ডিঙি নৌকো চেপে মাছ শিকারে মগ্ন তাঁরা তখনও।তারপর আকাশে চাঁদ উঠল আধখানা।চারিদিকের পরিবেশ তখন আরও মোহময় হয়ে উঠেছে।আকাশের রঙের খেলা আস্তে আস্তে ফিকে হয়ে আসতে লাগল।এবারে ঝুপ করে আঁধার নেমে আসার পালা।

আমরা এক দল মানুষ তখন এই অপরূপ দৃশ্যপট দর্শন করে মুগ্ধ,বিস্মিত,হতবাক!না সত্যিই,,,বড়ন্তীর সানসেট অনন্যতায় এক আলাদা স্থান পাবেই!

মার্চে পলাশ রাঙা বড়ন্তী তো দেখা হল।ইচ্ছে রইল একবার বর্ষার ঠিক পরে পরেই আসার!আকাশজোড়া মেঘের খেলা আর নানান রঙের ছটায় দীপ্ত সূর্যাস্ত্য দেখার জন্য..!

অরিন্দম পাত্র