বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৯

​বিস্ফোরণে কেঁপে উঠলো গুয়াহাটি মহানগরী

অনদেশ ডেক্স , ১৫ মে বুধবার

ঘন ঘন বিস্ফোরণে একদা আতঙ্কে দিন কাটাতো অসমবাসীর । ক্রমশ ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হয়ে এসেছিল জনজীবন । সবকিছু নিয়ন্ত্রণে ছিল । শান্ত বুড়ালোহিত্য বইছিল আপনগতিতে ধীরচালে । বুধবার সন্ধ্যায় মহানগরীর জমজমাট অঞ্চল জু রোডে

অকস্মাৎ গ্রেনেন্ড আক্রমণে একজন কিশোরী সহ ১১ জন গুরুতর আহত হয়ে গৌহাটির হাসপাতালে চিকিৎসাধীন । রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন এবং তদন্তের নির্দেশ দেন । কিন্তু ইতিমধ্যে

ভয়াবহ বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করল 'আলফা'(স্বাধীনতা)। সংগঠনের কমান্ডার পরেশ বড়ুয়া এই দায় স্বীকার করে । সিআরপিএফ প্যাট্রলের উপর এই হামলা বলে জানিয়েছে পরেশ বড়ুয়া।

ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে পুলিশ৷ জু রোডের সেন্ট্রাল মলের কাছে বিস্ফোরণ হয় বলে জানা গিয়েছে৷

ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে পুলিশের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা। ঠিক যেদিন অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা খতিয়ে দেখতে বিশেষ বৈঠক করেছেন, তার মধ্যেই এই বিস্ফোরণ ।

রাজ্যের স্বরাষ্ট্র দফতরের উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের সঙ্গে উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে বসেন মুখ্যমন্ত্রী।

একটি টাটা সাফারি থেকে গ্রেনেড ছোঁড়া হয়েছে বলে দাবি প্রত্যক্ষদর্শীর। পুরো জায়গা ঘিরে ফেলেছে পুলিশ। এলাকা জুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশের চেকিং চলছে ব্যাপক হারে।

বুধবার সকালে আলফা (স্বাধীনতা) জঙ্গি সংগঠনের আরও একটি বড়সড় নাশকতার ছক বানচাল হয় অসমে। বিপুল পরিমাণে আগ্নেয়াস্ত্র সহ তিন আলফা জঙ্গি ধরা পড়ে। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে, স্বয়ংক্রিয় বন্দুক, কার্তুজ। তিনসুকিয়া জেলার তারানি রিজার্ভ ফরেস্টে অভিযান চলাকালীন এই তিন জঙ্গি ধরা পড়ে।

কিছুদিন আগেই অসমে নাশকতা হতে পারে বলে গোয়েন্দা বিভাগ সতর্কতা জারি করে। বলা হয়ে, গুয়াহাটি ও বিভিন্ন জনবহুল স্থানে হামলা হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। আগেও এভাবেই বারে বারে রক্তাক্ত হয়েছে অসম সহ উত্তর পূর্বাঞ্চলের বিভিন্ন রাজ্য। নিম্ন অসমে রয়েছে জেএমবি-আইএস হামলা আশঙ্কা। ঠিক তেমনই উজানি অসমে রয়েছে অহম বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হামলার সম্ভাবনা।