বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৯

​জম্মু –কাশ্মীর ভেঙে কাশ্মীর কী কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হচ্ছে ?

বিগত কয়েকদিন ধরে কাশ্মীরে লাগাতার সৈন্য সমাবেশ ও বিরোধীদের আস্ফালন ভারতবিরোধী বক্তব্য , প্রতিবক্তব্যে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের ধারনা কাশ্মীর নিয়ে ভারত সরকার খুব বড় রকমের পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে । সেই পদক্ষেপ কী ? জম্মু –কাশ্মীর ভেঙে কাশ্মীর কী কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হচ্ছে ? এমনিতেই গত কয়েকদিনে ক্রমশ জটিল হয়ে উঠেছে কাশ্মীরের পরিস্থিতি। একদিকে অমরনাথ যাত্রা স্থগিত রেখে তীর্থযাত্রী ও পর্যটকদের পাহাড় ছাড়তে বলে হয়েছে। অন্যদিকে দলে দলে সেনা জওয়ানদের পাঠানো হচ্ছে সেখানে। এই দুই বিপরীত ছবি দেখে চিন্তায় পড়েছে সেখানকার রাজনৈতিক দলগুলি। আর গুজব ও আতঙ্কে দিশেহারা হয়েছেন সাধারণ মানুষ।

এর মাঝেই পাকিস্তানের বর্ডার অ্যাকশন টিমের চারবার অনু্প্রবেশের চেষ্টা রুখে দিয়েছে ভারতীয় সেনা জওয়ানরা। কেরান সেক্টরে দিয়ে অনুপ্রবেশের সময় চারজন পাকিস্তানি সেনা ভারতীয় জওয়ানদের গুলিতে খতমও হয়েছে। শনিবার ভারতীয় সীমানার ভিতরে থাকা ওই চারজনের মৃতদেহ ছবি পোস্ট করা হয়েছে ভারতের তরফে। সাদা পতাকা উড়িয়ে ভারতে এসে পাকিস্তানকে সেগুলি নিয়ে যাওয়ার পরামর্শও দিয়েছে দিল্লি।

কাশ্মীরে বড়ো কিছু ঘটতে পারে এর সংকেত স্পষ্ট পাওয়া যাচ্ছে। ৫ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী নিজের সরকারি আবাসে সকাল ৯টা বেজে ৩০ মিনিটে ক্যাবিনেটের ক্রুসিয়াল বৈঠক ডেকেছেন, এর সাথে বিজেপির সব সাংসদকে সদনে থাকার জন্য হুইপ জারি করা হয়েছে।

বলা হচ্ছে আজ সন্ধ্যে অব্দি কাশ্মীরের ইলাকা থেকে সকল যাত্রীদের ও টুরিস্টদের বায়ুসেনার C-17 বিমানের সাহায্যে বার করে নেওয়া হবে এবং তারপর শুরু হবে পদক্ষেপ নেওয়া। রাজ্যপালও ইশারা করে দিয়েছে 35A ও ৩৭০ ধারাএর বিষয় তিনি কিছু করতে পারবেন না ও তিনি কিছু জানেন না, আর সবাইকে ৫-৬ আগস্ট অব্দি প্রতীক্ষা করতে বলেছে।