রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯

রত্নদীপা দে ঘোষের দুটি কবিতা

বিদ্যানগর

একবার আসুন,

ক'দিন আমার কাছে থেকে যান
শুদ্ধ নিমের অহর্নিশ পাবেন এখানে
কয়েকটি ব্যাকুল, অমল পাখির টিয়া
বেগুনী স্রোতের জবা পৃথিবীর ডানায়
নিয়ম কোরে নিয়ন জ্বলে এখানে

সন্ধ্যেবেলায় চাঁদ, সূর্যনীল পুস্পের হার ,
ময়ূরের বৃষ্টিতে সূর্য, যেন চাঁদের নথ
পূর্ণিমার পোশাকে এলোকেশী আকাশ
পাহাড়কে শুনতে পাবেন দুপুরের দিকে

খুব শুনশান, গ্রামরঙের বেলোয়ারি
একবার আসুন, কয়েক দিন থেকে যান
এখানে কিছু নেই, শুধু নিঃশ্বাসের চুড়ি

উদাস তীরে তাকিয়ে থাকা একান্নবর্তী
চোখ, পালকের চারপাশ মায়ার যষ্ঠি



যাপন

নিশ্বাস নিই

নিশ্বাসে তোমার ঘ্রাণ, বাতাসফুলের আঙুল ছুঁয়ে মুগ্ধ বাদামী

ঘ্রাণ নিই

ঘ্রাণে তোমার গন্ধ, সরোবরের আড়ালে একাকার নদীসব

গন্ধ নিই

গন্ধে তোমার বসুধা, পাঞ্চালী পাখির পালকে লেখা অনন্ত বাণ
বসুধা নিই

বসুধায় তোমার পরাগ, তোরণের মালতী একগাছা রূপোলী চুম্বক
পরাগ নিই

পরাগে নির্বাচিত চুম্বন, দ্রুত ছুটে চলা চুমুকের অলৌকিক

চুম্বন নিই

শুনি তোমার ব্যক্তিগত সরোবর, থরথর ফাগুনের ফণা

ফণা নিই

তোমার অন্তরবৃক্ষ জ্বেলে দ্যায় জিভ আর শরীরের শিবির

তারা নিই

তোমার গোলাভরা তৃষ্ণা, তন্বী শিশিরে রক্তমুখী বৈতরণী