শনিবার, মে ৮, ২০২১

বাংলা কবিতার ইন্দ্রপতন

চলে গেলেন শঙ্খ ঘোষ । ৮৯ বছর বয়সে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ কেড়ে নিল বাংলা কবিতার মহীরুহ ।

কোভিড সংক্রমণ ধরা পরার পর ঝুঁকি না নিয়ে বাড়িতেই নিভৃতবাসে ছিলেন। হাসপাতালে যেতে চাননি তিনি । তাই বাড়িতেই চিকিৎসা চলছিল।কিন্তু মঙ্গলবার রাতে আচমকাই তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে শুরু করে। বুধবার সকালে তাঁকে ভেন্টিলেটরে দেওয়া হয়। কিন্তু চিকিৎসকদের সব প্রচেষ্টা ব্যর্থ করে চলে গেলেন কবি। বেলা সাড়ে ১১টা নাগাদ ভেন্টিলেটর খুলে নেওয়া হয় । বাড়িতেই এদিন সকালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন কবি শঙ্খ ঘোষ।

গত সপ্তাহেই করোনা সংক্রমিত হয়েছিলেন কবি। এছাড়াও নানা বার্ধক্যজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন শঙ্খ ঘোষ। বাড়িতেই আইসোলেশনে ছিলেন কবি। তবে, ক্রমেই তাঁর অক্সিজেন স্যাচুরেশন কমছিল। শেষ পর্যন্ত আজ সকালে ঘুমের মধ্যেই শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

১৯৩২ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের চাঁদপুরে জন্ম হয় শঙ্খ ঘোষের। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় স্নাতকোত্তর। কর্মজীবনে বঙ্গবাসী কলেজ, সিটি কলেজ, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেছেন। পড়িয়েছেন বিশ্বভারতী ও দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়েও।যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন অধ্যাপক শঙ্খ ঘোষ ইতিমধ্যেই পেয়েছেন পদ্মভূষণ সম্মান। পেয়েছেন দেশিকোত্তম, সাহিত্য অ্যাকাডেমি পুরস্কার। রবীন্দ্র পুরস্কারও পেয়েছেন তিনি। পেয়েছেন জ্ঞানপীঠ, সাহিত্য অ্যাকাডেমি-সহ একাধিক পুরস্কার।

তাঁর উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থগুলি হল ‘বাবরের প্রার্থনা’, ‘মুখ ঢেকে যায় বিজ্ঞাপনে’, ‘পাঁজরে দাঁড়ের শব্দ’, ‘মূর্খ বড় সামাজিক নয়’।