বুধবার, নভেম্বর ২০, ২০১৯

নিউজিল্যান্ড মসজিদে হামলা নিহত ২৭

জুম্মার নামাজ আদায় করতে বাংলাদেশের দলের কয়েকজন মসজিদে ঢুকতে গিয়েই দেখতে পান রক্তাত শরীরে বেরিয়ে আসছেন এক মহিলা। তিনি তখন তামিম ইকবালদের বলেন, 'ভেতরে যেও না, ভেতরে গোলাগুলি'। আর পাঁচ-দশ মিনিট আগে পৌঁছালেও সেই গোলাগুলির মধ্যে পড়ে যেতেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা।

ক্রাইস্টচার্চের টেস্টের আগের দিন অফিসিয়াল সংবাদ সম্মেলন করে বাংলাদেশের দলের কয়েকজন ক্রিকেটার সেখানকার সময় দুপুর ১টা ৪০ মিনিটে যাচ্ছিলেন জুম্মার নামাজ আদায় করতে। নিউজিল্যান্ড এমনিতে নিরাপদ হওয়ায় বাসে ছিল না আলাদা নিরাপত্তাকর্মী। বাস থেকে নামতেই তারা দেখেন রক্তাক্ত মানুষের হাহাকার।

মসজিদের সামনে রক্তাক্ত অবস্থায় বিধ্বস্ত ওই মহিলা বলেন, 'ভেতরে গুলি চলছে, আমার গাড়িতেও গুলি লেগেছে। তোমরা ভেতরে যেও না।'

ক্রিকেটাররা তখন হকচকিয়ে যান, হতভম্ব হয়ে বাসে ঢুকে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। স্থানীয় পুলিশ তখন বন্ধ করে দিয়েছে ওই রাস্তা।

উপায় না দেখে বাস থেকে নেমে হেঁটেই হোটেলে রওয়ানা হন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। এসময় তামিম, মুশফিকরা ভীষণ আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়েন।

ক্রিকেটারদের সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশ দলের ম্যানেজার খালেদ মাসুদ পাইলট। তিনি জানিয়েছেন, বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের সবাই নিরাপদে আছে। তবে স্বাভাবিক কারণেই সবাই আতঙ্কগ্রস্ত।

শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে বন্দুকধারীদের হামলায় অন্তত নয়জনের মৃত্যুর খবর জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম। এই সংখ্যা বাড়তে পারে বলেও জানিয়েছে তারা। মসজিদে এমন সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় ক্রাইস্টচার্চ টেস্ট বাতিল করা হয়েছে।