রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯

চিরঞ্জীব হালদারের কবিতা

এক

ধর্মপাদ যদি এক উদ্ভিদের নাম হয়।

পিতাকে বলেছিলাম পঞ্চম শতাব্দীর চাষীবালা

আমার ঘরনী ও হইতে পারে।

তার সুডৌল গোড়ালী আর এক ঢাল কালো কেশের বিনুনীতে গুজে রাখে সেই বীজ ধর্ম।

আমার বিবাহ বাসরে কোন ভাষায় মেঘকে

আমন্ত্রণ জানাবো।

প্রতিদিন আমাদের কনকাঞ্জলীর দিন।

অর্জুন বৃক্ষের ছায়ায় বসত করা দম্পতি কে ডাকা হোক,

রাজহংসীর সহবত শেখানো শিক্ষক কে ডাকা হোক,

আমাদের যুগল সাধনায় মাঙ্গলিক কুলোর হেতু আখ্যান অপ্রথাগত সিদ্ধ কিনা কে বলে দেবে

দুই

রামমোহন জানেন

পরকীয়া জাত কবিতায় কতটা রক্তক্ষরন হয়।

রাম নিধি গুপ্ত কি তোমার বান্ধব।

আজ বৃষ্টিতে ভিজে গেছে উঠোন।

কাস্তে চাঁদের আলোয় কে আর চালতা গাছের

কান্না সংরক্ষন করে।

আমাদের নিহত কল্পনারা তার ডালে ডালে

লাজুক কিশোরীর মত দোল খায়।

স্বপ্ন সংরক্ষন না করে আমরা ঘুমিয়ে পড়ি।