রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯

চিত্তরঞ্জন দেবনাথের একগুচ্ছ কবিতা

মনের সুরগুচ্ছ



কর্কটক্রান্তি থেকে দু'শো ফার্লং দূরে যুবতী টংঘর
দুজন মীন সেখানে ফুলকা বিনিময় খেলে
জলের ব‍্যামো ধুতে এসে এখানে পাখনা হারায় মেঘ
পাখনা জড়িয়ে জরাসন্ধ পাহাড় দেখি, জলপ্রপাত দেখি
ডাইবিং-এর হাল্কা শরীর খুটে খায় ট্রান্সজেন্ডার রোদ


মনের দ্রাঘিমায় প্রথম বৃষ্টির ছাট পেতে বসে আছে কিশোরি
তার যৌবন শেখার খড়িমাটি ভিজে গেলে
সে সোঁদা গন্ধের পুরুষ লেখে স্লেটে,
গোঁফের চন্দ্রবিন্দুতে রাখে এলোমেলো মন
তুমুল ঝড়ে লন্ডভন্ড হোক
চিবুকের সর্বনামহীন তিল, দুটো সরল ডাকনাম


ফাৎনা নড়ে ওঠলে বর্ষাকাল পোয়াতি হয়
সড়কের পাশে গা এলিয়ে থাকে কিন্নর লতাগুল্ম
ওদের কাছে চিঠি আসে নাটকের শেষ দৃশ‍্য মুড়ে
গঞ্জের যে লোকটা বিনিদ্র হারমোনিয়াম সারাই করে
তার সাইকেলের সংক্ষিত বোর্ডে লেখা–
"মনের সুর সারাই করি"