বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৯

ঘন্টায় ১৭০/১৮০ কিলোমিটার বেগে আছড়ে পড়লো ওড়িশার সমুদ্রতটে ‘ফণি’

ঘন্টায় ১৭০/১৮০ কিলোমিটার বেগে আছড়ে পড়লো ওড়িশার সমুদ্রতটে ‘ফণি’

অন্যদেশ ডেক্স , ৩রা মে, শুক্রবার

আশঙ্কা সত্যি করে শুক্রবার সকাল ৮টার কিছু পরে উপকূলে আঘাত হানল ঘূর্ণিঝড় ফণি। ওড়িশার পুরী জেলার চিলিকা হ্রদের পশ্চিমপাড় দিয়ে ভূভাগে প্রবেশ করে ঝড়টি। ভূভাগে আঘাত হানার সময় হাওয়ার গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১৭০ কিলোমিটার। যার জেরে উপকূলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে।

ঘূর্ণিঝড়ের জেরে ওড়িশা ও পশ্চিমবঙ্গে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা প্রকাশ করেছিল হাওয়া অফিস। শুক্রবার 'ফণি'-র ভূভাগে প্রবেশের যে ছবি প্রকাশ্যে এসেছে তা কিন্তু শিউরে ওঠার মতো। প্রবল বেগে বইছে হাওয়া, হাওয়ার দাপটে নুয়ে পড়ছে নারকেল গাছগুলি। সামনে হাওয়ার দাপটে লন্ডভন্ড চেয়ার টেবিল। 'ফণী' ওড়িশার দরজায় কড়া নাড়ার পরই এদিন সকাল ৯ টায় পুরীতে আছড়ে পড়ল সুপার সাইক্লোন। ইতিমধ্যেই জগন্নাথের শহরে শুরু হয়ে গিয়েছে প্রবল ঝড় বৃষ্টি। এদিকে, প্রহর গুনছে এরাজ্যও। বাংলায় আগমী কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই আছড়ে পড়বে এই দানবীয় সাইক্লোন।

ওড়িশায় আছড়ে পড়ল ঘূর্ণিঝড় ফণী । ঝড়ের গতিবেগ ঘণ্টায় প্রায় ১৭০ কিলোমিটার। আবহাওয়া দপ্তরের সূত্র বলছেদুপুর পর্যন্ত ওড়িশায় তাণ্ডব চালাবে ফণী । তারপর তাএগোতে থাকবে পশ্চিমবঙ্গের দিকে । সংবাদ সংস্থা পিটিআইজানিয়েছে আরও ঘণ্টাতিনেকওড়িশাতেই থাকবে ঘূর্ণিঝড়।এমনিতেই ওড়িশার গোপালপুর, পুরী,পারাদ্বীপের মতো জায়গায় ভারী বৃষ্টি শুরু হয়েছে। সকাল সোয়া৯টা নাগাদ আবহাওয়া দপ্তরের তরফে বলা হয় ঝড়ের গতিবেগ ঘণ্টায় ১৭৫ থেকে১৮০ কিলোমিটার। ১৯৯৯ সালের ওড়িশার পারাদ্বীপে সুপার সাইক্লোনের পর এই সাইক্লোন ফণীই সবথেকে বেশি শক্তিশালী ও মারাত্মক। ওড়িশায় ওই সাইক্লোনে প্রাণ গিয়েছিল প্রায় ১০ হাজার মানুষের। গত ৪৩ বছরে ভারতের সামুদ্রিক অঞ্চলের দিকে এত বড় ঝড় আর ধেয়ে আসেনি। আগেই ভয়াবহ বৃষ্টির সম্ভাবনা' জানিয়ে দিয়েছে আবহাওয়া দফতর।আজ সকাল আটটার কিছুপরেই ঘূর্ণিঝড়ের লক্ষণ স্পষ্ট হতে শুরু করে। এর আগেযুদ্ধকালীন তৎপরতায় ওড়িশার ১১'টি জেলা থেকে মানুষকে সরানো কাজ শুরু হয়। পুরী, জগৎসিংহপুর, কেন্দ্রাপাড়া, ভদ্রক, বালাসোর, ময়ূরভঞ্জ, গজপতি, গঞ্জাম, খুরদা, কটক এবং জাজপুর। একটি সূত্র বলছে উদ্ধার করে নিয়েআসা মানুষদের খাওয়ানোর জন্য সবমিলিয়েহাজার পাঁচেক অস্থায়ী রান্নাঘর খোলাহয়েছে।

সংবাদ সূত্র - ANI