বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৯

কর্নাটকে জোট সরকারের পতন; আস্থাভোটে হার কুমারস্বামীর,

এক সপ্তাহের নাটকের অবসান ।

মাত্র ১৪ মাসের মধ্যেই কংগ্রেস-জেডিএস জোট সরকারের পতন হল কর্নাটকে। বিধানসভায় আস্থাভোটে হারলেন কুমারস্বামী। মঙ্গলবার উপস্থিত ২০৪ বিধায়কের মধ্যে জোট সরকারের পক্ষে ভোট গিয়েছে ৯৯টি। অন্যদিকে বিপক্ষে পড়েছে ১০৫টি ভোট। সংখ্যাগরিষ্ঠতার প্রমাণ দিতে ব্যর্থ কুমারস্বামী। এরপর সরকার গড়ার দাবি জানাবে বিজেপি। ইয়েদুরাপ্পারা অনায়াসেই সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে পারবেন বলেই দাবি পদ্ম শিবিরের। তাহলে চতুর্থবারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন ইয়েদুরাপ্পা।

সপ্তাহ দুয়েক আগে কংগ্রেসের ১৩ জন ও জেডিএস-এর ৩ জন বিধায়ক ইস্তফা দেওয়ার ফলে রাজনৈতিক সংকট শুরু হয় কর্ণাটকে। এর পর থেকেই নানা টালবাহানার মধ্যে দিয়ে চলেছে কর্ণাটকে ক্ষমতা বদলের পর্ব। বিগত বেশ কিছুদিন ধরেই কর্ণাটকের স্পিকারের বিরুদ্ধে আস্থাভোটে দেরি করিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। বিজেপির অভিযোগ, রাজ্যে শাসক কংগ্রেস-জেডিএস জোটকে আসন রফা করার ক্ষেত্রে বাড়তি সময় দিতে ইচ্ছা করেই এমনটা করছেন স্পিকার কে.আর রমেশ কুমার। কিন্তু সোমবার বিধানসভার অধিবেশন শুরু হতেই স্পিকার জানিয়ে দেন, মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টার মধ্যেই আস্থাভোট করতে হবে।

কর্নাটকে ২০১৮ সালের ভোটের পর বিজেপিকে রুখতে কংগ্রেস ও জেডিএস জোট গড়েছিল। সর্ববৃহৎ দল হিসেবে বিজেপির ইয়েদুরাপ্পা সরকার গড়লেও, কংগ্রেস-জেডিএসের মিলিত শক্তির কাছে হার মানতে বাধ্য হয়েছিল। তারপর জেডিএসের কুমারস্বামীকে মুখ্যমন্ত্রী বেছে নিয়ে মডেল জোট সরকার গড়ে তুলেছিল কংগ্রেস।কংগ্রেস ও জেডিএস চাইছে যে কোনও মূল্যে আস্থা ভোট পিছিয়ে দিতে চেয়েছিল। চেয়েছিল বিদ্রোহী বিধায়করা ফিরলে আস্থা ভোটে যেতে। কিন্তু সেই লড়াই আর টিকিয়ে রাখা গেল না। বিজেপি চাইছে কালবিলম্ব না করে আস্থা ভোট করতে। কুমারস্বামী সরকারকে ফেলে ফের কর্নাটকের কুর্সিতে বসতে চাইছিলেন ইয়েদুরাপ্পা।এদিন ১৬ জন বিদ্রোহী বিধায়ক অংশ নেননি আস্থা ভোটে। ১৬ জন বিদ্রোহী বিধায়কের মধ্যে কংগ্রেসের ১৩ জন বিধায়ক আর জেডিএসের তিন জন বিধায়ক ছিলেন। অন্যদিকে বিএসপি বিধায়কও অংশ নেননি আস্থা ভোটে। কাজেই আস্থাভোট হলে জোট সরকারের পতন ছিল অবশ্যম্ভাবী। সেইমতো আস্থার পক্ষে কংগ্রেস-জেডিএস ভোট পায় ৯৯টি। আর বিজেপি পায় ১০৫টি ভোট। উল্লেখ্য, ম্যাজিত ফিগার ছিল ১০৩, যা ছুঁতে সক্ষম হল বিজেপি। ফলে পতন ঘটে কুমারস্বামী সরকারের। বিজেপির গেমপ্ল্যানের কাছে আরও একবার পরাজয় ঘটল কংগ্রেস ও জেডিএসের।

নিউজঋণ -ANI