মঙ্গলবার, নভেম্বর ১৯, ২০১৯

এপ্রিলে ৩৬০ ভারতীয় বন্দিকে মুক্তি দিচ্ছে পাকিস্তান

২০০৮ সালের ২১ মে দুই দেশের মধ্যে স্বাক্ষরিত কনস্যুলার বিনিময় চুক্তির আওতায় প্রতি বছরে দুইবার পরস্পরের মধ্যে বন্দিদের তালিকা বিনিময় করে আসছে দিল্লি-ইসলামাবাদ। বছরের প্রথম তালিকা বিনিময় হয় ১ জানুয়ারি আর পরেরটা ১ জুলাই। দুই দেশেই আটক বন্দিদের একটা বড় অংশ মৎসজীবী। বেশিরভাগ সময়ই না বুঝে নিজ নিজ দেশের সমুদ্রসীমা অতিক্রম করার কারণে তারা আটক হয়ে থাকে।

সংবাদমাধ্যম ডন-এর ওয়েবসাইটে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র মোহাম্মদ ফয়সালকে উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে, তালিকা অনুযায়ী ৫৩৭ জন ভারতীয় বেসামরিক সে দেশের কারাগারে বন্দি আছে। এদের মধ্যে এপ্রিলে চার ধাপে ৩৬০ জনকে মুক্তি দেওয়া হবে। মাসের ৮, ১৫ ও ২২ তারিখ ১০০ জন করে ৩০০ জনকে মুক্তি দেওয়া হবে। আর ২৯ এপ্রিল মুক্তি পাবে বাকী ৬০ জন।ফয়সাল জানিয়েছেন, সাজার মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তাদেরকে মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ভারতের কারাগারে ৩৪৭ জন পাকিস্তানি আটক রয়েছে বলে জানিয়েছেন মোহাম্মদ ফয়সাল। তবে আউটলুক ইন্ডিয়ার ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে, ১ জুলাই দুই দেশের বন্দি বিনিময়ের পর সবশেষ তালিকা অনুযায়ী, ভারতে বন্দি পাকিস্তানি বেসামরিকের সংখ্যা ৩৫৭ জন, যাদের মধ্যে ১০৮ জন মৎসজীবী।

পাকিস্তান এমন এক সময় এই বন্দি বিনিময়ের ঘোষণা দিল যখন নিয়ন্ত্রণ রেখা লঙ্ঘন করে পরস্পরের বিরুদ্ধে বিমান হামলার পর দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা চলমান। মোহাম্মদ ফয়সাল আশা প্রকাশ করেছেন, পাকিস্তানের বন্দি মুক্তির ‘মানবিক উদ্যোগ’-এর প্রতি শ্রদ্ধা দেখিয়ে ভারতও তাদের বন্দিদের মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা কর