শুক্রবার, নভেম্বর ২২, ২০১৯

অবশেষে গ্রেফতার চিদম্বরম

গ্রেফতার করা হল প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমকে । INX Media মামলায় আজ তাঁকে গ্রেফতার করল সিবিআই ।

তাঁকে সিবিআই সদর দফতরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে ও আজ রাতে সিবিআই হেফাজতেই রাখা হবে তাঁকে ।

২৭ ঘণ্টা পরে কংগ্রেসের সদর দফতরে আত্মপ্রকাশ করেছেন পি চিদম্বরম । INX Media মামলায় তাঁর বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ নেই ও তাঁর বিরুদ্ধে সরাসরি মিথ্যাচার করা হচ্ছে, স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন তিনি ।সাংবাদিক সম্মেলনের পর জোড়বাগে নিজের বাড়িতে ফিরেছেন চিদম্বরম । সেখানেই তাঁর বাড়িতে হানা দেয় সিবিআই ও ইডি।

২০০৮ সালে INX Media মামলায় INX Media কে বিদেশী বিনিয়োগে অবৈধভাবে ছাড়পত্র দেওয়ার অভিযোগ আনে সিবিআই । চিদম্বরম পুত্র কার্তি চিদম্বরমের বিরুদ্ধে অবৈধ টাকা লেনদেনের অভিযোগ দায়ের হয় । প্রায় ৩০৫ কোটি টাকা বিদেশী বিনিয়োগে অবৈধ ছাড়পত্র দেওয়ার অভিযোগ ওঠে তত্‍কালীন UPA সরকারের বিরুদ্ধে । পরে ইডির হাতে এই মামলার দায়িত্বভার দেয় আয়কর দফতর।

মনমোহন সিং সরকারের ১০ বছরের জমানায় অত্যন্ত প্রভাবশালী মন্ত্রী ছিলেন পি চিদম্বরম। ২০০৫ সালে সোহারাবুদ্দিন শেখকে পুলিস হেফাজতে হত্যা করা হয়েছে অভিযোগ ওঠে। ওই সময়ে গুজরাটের স্বরাষ্ট্র দফতর ছিল অমিত শাহের অধীনে। সোহরাবুদ্দিনের বিরুদ্ধে তখন ৬০টি মামলা ঝুলে ছিল। অভিযোগ ওঠে, অমিতের অনুমতি পেয়ে ভুয়ো সংঘর্ষে সোহরাবুদ্দিনকে খুন করা হয়েছিল।

২০১০ সালের জানুয়ারিতে মামলাটি সিবিআইয়ের হাতে দেয় সুপ্রিম কোর্ট। তার ঠিক ৬ মাস পর জুলাইয়ে অমিত শাহকে গ্রেফতার করেন তদন্তকারীরা। তখন কেন্দ্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পি চিদম্বরম। গুজরাট হাইকোর্টে জামিনের আবেদন করেছিলেন অমিত। কিন্তু আপত্তি তুলে সিবিআই জানিয়েছিল, রাজনৈতিক ক্ষমতা খাটিয়ে প্রমাণ নষ্ট বা সাক্ষীদের প্রভাবিত করতে পারেন তিনি। অক্টোবরে অমিত শাহকে জামিন দেয় গুজরাট হাইকোর্ট। পরের দিন সিবিআইয়ের আবেদনে সাড়া দিয়ে বিচারপতি নির্দেশ দেন, গুজরাটে থাকতে পারবেন না অমিত শাহ। ২০১০ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত নিজের রাজ্যে ঢুকতে পারেননি বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তখন অমিত শাহ অভিযোগ করেছিলেন, ক্ষমতার অপব্যবহার করে সিবিআই দিয়ে তাঁকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে কংগ্রেস।


সূত্র – News 18 , ANI